বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। ইমেইল - netphoring@gmail.com ফোন - 7908076073

This is default featured slide 1 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 2 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 3 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 4 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 5 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

শনিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৮

হারানো শৈশব


হারানো শৈশব
সুজন ডাকুয়া

দিনগুলি সব যাচ্ছে বয়ে
স্মৃতিগুলি রেখে,
হঠাৎ তারাই উঠল বুঝি
পিছু ফিরে ডেকে
কেমন করে বদলে গেছি
ছোট্টবেলার আমি,
আমার কাছে ছোট্টবেলার
সেই জীবনটাই দামী
তখন ছিলাম বনের পাখি
কিচিরমিচির ঠোঁটে,
এক নিমেষে ছুটে যেতাম
ফুল যেখানে ফোটে
শরীর জানি বন্দী ছিল
মন বেড়াত উড়ে,
পক্ষীরাজের পাখায় চড়ে
যেতাম অনেক দূরে
পূজো এলে কী যে মজা
মেঠো পথে পাড়ি,
পায়ে হেঁটে খুশি মনে
যেতাম মামার বাড়ি
দুপুরবেলা মাঝ-পুকুরে
ডুব-সাঁতারের ঢেউ,
আজও দিতে ইচ্ছে করে
সঙ্গী হবে কেউ ?
মাঝি পাড়ায় যাত্রা হত
যাত্রা ভালোবাসি,
আর কি আমি ফিরে পাবো
মহারাজের হাসি !
সবুজ বনে হুটোপুটি
উঁচু গাছের মাথা,
টাপুস্-টুপুস্ পড়ত ঝরে
হলুদবরণ পাতা
হঠাৎ আজি বলে দিল
শেষ বিকেলের আলো,
শৈশবের সেই জীবনটা যে
ছিল কত ভালো


বৃহস্পতিবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৮

মিষ্টি সূচনা





মিষ্টি সূচনা
ঋষিব্রত গোস্বামী

ইউনিভার্সিটির ক্লাস চলতে চলতেই বারবার আকাশের দিকে দেখছিল অভি এইরকম পরিস্থিতি থাকলে তো আর কিছুক্ষণের মধ্যে বৃষ্টি নামবে আর কফিশপের দূরত্ব অনেকটাই এখান থেকে যাই হোক কোনোমতে ক্লাসটা শেষ হল এই শুক্রবার দিনটা তার বনানীর জন্যই তোলা থাকে কফিশপে কফি খেতে খেতে আড্ডা মারে দু’জনে বনানী, অভির ক্লাসমেটতাদের এই একসাথে শুক্রবার আড্ডা মারা নিয়ে অনেক হাসিঠাট্টা ইয়ার্কি করে বন্ধুবান্ধবরাআসলে বনানী  গ্রাম থেকে শহরে পড়তে এসেছে আর অভি এখানকা লোকাল ছেলেঅভির ফ্ল্যাটের ওদিকেই বনানীর পিজি তাই তারা একসাথেই বাড়ি ফেরে রোজ আর ইউনিভার্সিটির কোনো বন্ধুর বাড়ি নেই ওদিকে বেশ  কিছুটা পথ তাদের একসাথেই যেতে হয় আর শুক্রবার দিনটা তাড়াতাড়ি ছুটি হওয়ায় একটু একসাথে সময় কাটায় বনানী আর অভি বলতে গেলে বনানী ছেলেদের সাথে অতটা কথা বলে না দুই-তিন জন বাদে  তার মধ্যে অভিকে সবচেয়ে বেশী বিশ্বাস করে "এই কীরে এরকম গভীরভাবে কী ভাবছিস?" বনানীর প্রশ্নে ফ্ল্যাশব্যাকে চলে যাওয়া অভি বাস্তবে ফিরে বলে "না না কিছুনা! চল না হলে তপু দেবু রঞ্জা ওরা এসে আবার হাসিঠাট্টা শুরু করবে আর একটু পরেই বৃষ্টি নামবে চল তাড়াতাড়ি গিয়ে একবার বাড়িতে ঢুকে পড়তে পারলে নিশ্চিন্ত "দুজনে ছুট লাগালো বাসের খোঁজে
মনে আশঙ্কার মেঘ এই আকাশের মেঘের মতোই কী আজকের পরিস্থিতি হবে? -ভেবেই চলেছে অভি কারণ আজ যে সে এক সত্য স্বীকারের মুখোমুখি এটা আজ না বললে পরে আফশোশ হবে বড্ড দেরি হয়ে যাচ্ছে কফিশপে নির্বিঘ্নে পৌঁছে কফির অর্ডার দিয়ে একদৃষ্টিতে বনানীকে দেখতে থাকে অভি তার মনে হয় সব সৌন্দর্য্য যেন একত্রে নিজেদের সঁপে দিয়েছে বনানীর পায়ে আজ নতুন দেখছে না একবছর ধরে পরিচয় তবুও যেন কেমন যেন আজ অচেনা লাগছে ওকে যেন নতুন কোনো উপন্যাসের অসামান্যা এক চরিত্রকে আবিষ্কারের দায়িত্ব সামলাচ্ছে অভি "আরে তোর আজকে হয়েছেটা কী বলত? "বনানীর প্রশ্নে নড়েচড়ে বসে অভি না, যা বলার এখনই বলবে সে
মনে অনেক সাহস নিয়ে শুরু করল অভি- "দেখ অনেক কিছু বলার আছে তোকে "তো বল কী বলার আছে?আমাকে কিছু বলবি তার জন্য এত বাপরে বাপ আজ দেখছিস আমাকে ? প্রথম?"অবাক হয়ে উত্তর দেয় বনানী
"না প্রথম দেখছি না এই ধরনের কথা প্রথম বলছি শোন মনের সাথে অনেক বোঝাপড়া করেছিআমি জানি না তোকে একদিন না দেখে থাকতে পারি না  তোর জন্য প্রতিমুহূর্তে চিন্তা হয় তোর সাথে ফোনে কথা না হলে রাত্রে ঘুমাতে পারি না সকালে তোর ফোনকল না পেলে উঠতে ইচ্ছে করে না তোর দিকে তাকালে আমি সব দু: নিমেষে ভুলে যাই যদি একে ভালোবাস বলে তবে আমি তোকে ভালোবাসি ভীষণ ভালোবাসি "আবেগের স্বরে বলে চলে অভি "বাকিটা তোর সিদ্ধান্ত"কথা শেষ করেই মাথা নীচু করল অভি দাঁত চেপে গর্জে ওঠে বনানী "নির্লজ্জ কোথাকারের চোর"
"কী চুরি করলাম আমি?" ভয়ে ভয়ে বলল অভি
"ধরে ক্যালাতে হয় তোদের"
"যা: গেল যে ভয় পাচ্ছিলাম "মনে মনে ক্ষমা চাওয়ার জন্য তৈরী হয় অভি
"আমার মুখের কথা চুরি করে বললি "লাজুকভাবে বলে বনানী অভির মন  মুহুর্তে আনন্দে ভরে যায় বনানী উঠে পাশের চেয়ারে বসে অভির একই কাপে দুটো স্ট্র দিয়ে কফি খাওয়া শুরু করে তারা বাইরের বৃষ্টি ভেজা প্রকৃতি আর ভেতরে সদ্য প্রস্ফুটিত দুটি ভালোবাসার ফুল এক সুন্দর অনুরণনে অনুরণিত হতে হতে যেন বাঁধা পড়ে যায় কোনো এক অজানা বাঁধনে

সোমবার, ১ অক্টোবর, ২০১৮

নেট ফড়িং সংখ্যা ৫৬