বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। ইমেইল - netphoring@gmail.com ফোন - 7908076073

This is default featured slide 1 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 2 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 3 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 4 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

This is default featured slide 5 title

Go to Blogger edit html and find these sentences.Now replace these sentences with your own descriptions.

শনিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১৮

শোষণ



শোষণ
প্রসেনজিৎ রায়

আমি ওই দুখিনীদের কথা বলছি....
যারা ক্ষুধার জ্বালায় ডাস্টবিনের ফেলা খাবার খায়,
জীবন বড়ো কষ্টের, যুদ্ধ করে একটু বাঁচার জন্য ।
কোনো দিন অনাহারে, অক্লান্ত পরিশ্রম করেও
ক্ষুধার জ্বালায় ঘুম আসে না তাদের ।

হায়রে কৃষক
কষ্ট করে ফলানো সোনার ফসল
ন্যায্য মূল্য পায় না তারা, মজুরদার করে উসুল ।
জগতে ঠকিয়ে মজুরদার করেছে মাথা উঁচু
ঠকানো টাকায় গড়ছে মাথার উপরিটুকু ।

হে শ্রমিক
যাদের শ্রমের বিনিময়ে উঠেছে দালানকোটা
কিন্তু জীবন কেন অসহায় ।
মালিক করছে বাড়ী, করছে গাড়ী
শ্রমিক তেমনি আছে,চূলায় শূন্য হাঁড়ী ।

অধিকারের কথা বলছি না....
সংবিধানে পড়ছি পাঁচটি মৌলিক অধিকার সবার নাকি পাওনা
শাসক শ্রেণী ভোগ করছে আজ, গরিব দুখী তো পায়না ।
অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে দুর্নীতি
রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিতরণ কালে, সামনে দেখি শাসকদের স্বজন প্রীতি ।


বৃহস্পতিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০১৮

শেষ চিঠি



শেষ চিঠি
আদিত্য সাহা

আমার প্রিয় ক্যাথেরিন,
                                     এই বছরই আমাদের হয়তো শেষ খ্রিষ্টমাস আর কোনোদিন হয়তো তোমদের সাথে আর নতুন বছর উদযাপন করতে পারবো না খুব কষ্ঠের সাথে এই চিঠি লিখছি মলি আর বেন কে ভালো স্কুল পড়িও, আমার খুব ইচ্ছা ছিল মলি কে গ্র্যাজুয়েট হতে দেখার, খুব ইচ্ছা ছিল বেন এর বেসবল ফাইনাল ম্যাচটা তোমার সাথে দেখার মা কে একটু দেখে রেখো বয়স হয়েছে তো তাই একটু বেশি আবেগপ্রবণ যদি আর্থিক পরিস্থিতি খুবখারাপ হয় তাহলে যে তোমার দেয়া রুপার ঘড়ি টা আছে না ? ওটা বিক্রি করে দিও ওহো বলতেই ভুলেগেছিলাম মার ইনহেলার টা কিনতে ভুলে গিয়েছিলাম , তুমি একটা নতুন কিনে দিও কোনো দিন খারাপ পাবে না এটুকুই মনে রাখবে আমি দেশের জন্য নিজের প্রাণ ত্যাগ করেছি দেশের পূর্ণ সুরক্ষার দায়িত্ব আমার মতো আরো অনেক মানুষ নিয়েছে আগামী ভবিষ্যতের কথা ভেবেই আমি এই কাজ করছি আহ , শেষ করছি , বেশি কথা বলবো না ; ভালো থেকো প্রিয় ক্যাথেরিন
                                              তোমার প্রিয় জেমস
এই চিঠিটা একটু ভালো করে খামে ভরে আমার বাড়িতে দিয়ে এসো মিলিটারি পোস্টমান বলল " ঠিক আছে , যাও জোয়ান , ইশ্বর তোমার মঙ্গল করুক " " জেমস জেমস ! কোথায় তুমি ? চলো তাড়াতাড়ি ! দেরি হয়ে যাচ্ছে অনেক " বললেন জেনারেল উইলিয়ামস ; "এইতো এসে পড়েছি " বললাম
অবশেষে ঘন্টার নৌকা যাত্রার পর আমরা পৌছালাম খুব সতর্ক ভাবে চলার পর দূর থেকে দেখছি নাৎসি সৈন্য দল আসছে , ক্যাপ্টেন বললেন " গুলি চালাও ! " আমরা গুলি করছি অনেকে মারা গেছে কিন্তু তাদের সামরিক শক্তি অনেক শক্ত আমরা পেরে উঠছিলাম না, শেষে সবাই এক এক করে মারা পড়ছিলো , সে সময় আমি দুটো গ্রেনেড নিয়ে তাদের দিকে ছুটলাম ; দুটো গুলি আমার পাঁজর ফুটো করে বেরিয়ে গেল , তাও কষ্ট করে তাদের দিক উদেশ্য করে গ্রেনেড ছুড়ে দিলাম তাদের অনেকে সৈন্য মারা গেল , দেখলাম তাদের বাকিরা পালিয়ে যাচ্ছে খুশি হলাম , কিন্তু আমার শ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে কেন ? ওহ হ্যাঁ এখনই তো সময় ! একটু হেসে মনে মনে বললাম ঈশ্বর আমার মাতৃভূমির মঙ্গল করুক, আমার লোকজনের উপর মঙ্গল করুক , আমার পরিবারের পর ....  ১৪/0/১৯৪৩ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের এক উদাহরণ



মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৮

নেট ফড়িং সংখ্যা ৫৯