বুধবার, ৩ জুলাই, ২০১৯

ছেলে



ছেলে
নাজেস মাহমুদ

যে ছেলেটা গেম খেলতে বসলে উঠতো না সে ও আজ চাকরির বিজ্ঞাপন দেখে । ডেস্কটপ এ গেমের আইকন গুলো কখন যেন ফ্রিল্যানসিংয়ের ওয়েবসাইট এ বদলে যায় । যে রোজ রাতে স্বপ্ন দেখতো একটা ভালো বাইক এর, এখন সে রোজ রাতে ভাবে কি করে ভালোবাসার মানুষ গুলোর স্বপ্ন গুলো সত্যি করা যায়। আব্বুর রিটায়ারমেন্ট এর সময় আসছে, আম্মুর শরীর ভালো না, বউকরে ডাকা মেয়েটার অন্য কোথাও বিয়ের আলাপ চলছে - এই চিন্তাগুলোই তাড়িয়ে বেড়ায় । টিউশন থেকে ফেরা প্রেমের গল্প গুলো এখন আটকে আছে মাঝরাতের ফোন কল এর অপেক্ষায় । সন্ধ্যায় যে সময়টাতে সবাই মিলে আড্ডা হতো, ছেলেটা এখন সে সময় টিউশন পড়াতে যায় । আগে যে টাকাটা রেস্টুরেন্ট এ খরচ হতো এখন সেটা ইমার্জেন্সী ফান্ড এ ঢোকে। যে ছেলেটা আব্বুর কাছে শখের জিনিস গুলো কিনে চাইতো, সে আজ অনুভব করে সবার দায়িত্ব তাকেই নিতে হবে । সময় গুলো কত তাড়াতাড়ি বদলে যায় । তিল তিল করে গড়ে তোলা হাসি-কান্নার সম্পর্ক গুলো দাঁড়িয়ে থাকে একটা চাকরি পাওয়া আর না পাওয়ার প্রশ্নে ।


মঙ্গলবার, ২ জুলাই, ২০১৯

অপেক্ষা



  অপেক্ষা
কুশল চক্রবর্তী

তপ্ত বিকেল ক্লান্ত পথিক
শান্ত হিমেল হাওয়ার খোঁজে
সবুজ পথের কোমল গলি
থমকে আসে তার কাছে

দূরের আকাশ গভীর কালো
অরণ্যে আজ ভীষন আলো
হারিয়ে যাওয়া পথের ধারে
আড়াল ছবি পথিক পানে

আধুনিকতার বদ্ধ ঘরে
যন্ত্র মানব মন্ত্র বলে
ক্লান্ত পথিক ক্ষান্ত হয়ে
নিশির ডাকের অপেক্ষাতে